কৃষি ক্ষেত্রে প্রযুক্তিবিদ্যা

প্রযুক্তি এমন একটি বিষয় যা সকল ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হয়। বর্তমান যুগে প্রযুক্তি কৃষি ক্ষেত্রে অনেক উপকার করছে। যা অল্প সময়ের মধ্যে সকল কাজ করে দেচ্ছে।

আধুনিক প্রযুক্তি কৃষির মানোন্নয়নের পাশাপাশি কৃষি উৎপাদনের পরিমাণ বাড়িয়ে দিয়েছে। প্রযুক্তিবিদ্যা বিকাশের সুফল কাজে লাগিয়ে দেশের শিক্ষিত অনেক বেকারই আজ স্বাবলম্বী। বিশেষ করে গ্রামীণ জনপদে বেকারত্ব দূর করতে চাকরির মোহ ত্যাগ করে তারা নানাভাবে কৃষি ও মৎস্য উৎপাদনে নিজেদের সম্পৃক্ত করেছেন।

অর্থনৈত ইংল্যান্ড, আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়ার ২ থেকে ৫ শতাংশ মানুষ কৃষিজীবী। অন্যদিকে আমাদের দেশের ৭০ শতাংশ মানুষই কৃষিজীবী। কৃষির উন্নতিতেই গ্রামীণ স্বনির্ভরতা আর গ্রামীণ স্বনির্ভরতাতেই জাতীয় অর্থনীতির আরও বিকাশ সম্ভব। বিভিন্ন পরিকল্পনায় সরকার কৃষির উন্নয়নে যতটুকু গুরুত্ব দিয়ে চলেছে, এর যথাযথ বাস্তবায়ন দরকার।

গত বছরের প্রায় মধ্যভাগ থেকে এখন পর্যন্ত নিত্যপণ্য পেঁয়াজ নিয়ে যেসব তুঘলকি কাণ্ড ঘটে গেল, এর আলোচনা নতুন করে নিষ্প্রয়োজন। অথচ চাহিদার বিপরীতে আমাদের পেঁয়াজ উৎপাদনে ঘাটতি মাত্র ৭-৮ লাখ টন। এই ঘাটতি পোষানো সম্ভব উৎপাদন বৃদ্ধির মাধ্যমে। পেঁয়াজের মতো এমন আরও পণ্য আছে, সেগুলোর আমদানিনির্ভরতা আমরা কমিয়ে আনতে পারি উৎপাদন বৃদ্ধির মধ্য দিয়ে।

এ জন্য যেমন আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার সম্পর্কে কৃষককে যথেষ্ট প্রশিক্ষণ দিতে হবে, তেমনি সংশ্নিষ্ট সব উপকরণও করতে হবে সহজলভ্য। এই বিষয়গুলো নীতিনির্ধারকরা আমলে রেখে ভবিষ্যৎ কর্মপরিকল্পনা নির্ণয় করতে সক্ষম হলে কৃষকের ভূমিকা হবে আরও সাড়া জাগানো।

বাংলাদেশ কৃষি প্রধান দেশ, মানুষ যা 5 ঘন্টায় কত কাজ। তা এখন আধুনিক প্রযুক্তির মাধ্যমে দু’ঘণ্টা বা তার কম সময় করে দেশে প্রযুক্তি।
এখন নানা উন্নয়নে ক্ষেত্রে, প্রযুক্তি ব্যবহার করে সফলতা পাব।

50 COMMENTS

  1. কৃষি ক্ষেত্রে প্রযুক্তিবিদ্যা যা আমাদের কাজকে করেছে উন্নত……..Tik kotha

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here