১০ টি এন্ড্রয়েড App যা মুসলিম ছাত্র দের কে হেল্প করতে পারে

আসসালামু-আলাইকুম,বন্ধুরা। আশা করি ভালো আছেন। আমি ও আলহামদুলিল্লাহ ভালো আছি। যুগ পাল্টাচ্ছে। সেই দিনের কলম-দোয়াত যে কবে কিবোর্ড এ পরিনত হয়েছে তা মানুষ টেরই পাই নি।আর যে মানুষ তার আশে পাশের রিসোর্স কে যত বেশি ইফেক্টিভলি ব্যবহার করতে পারবে, সে তত সফল। আজ আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করব এমন কয়েকটি এন্ড্রয়েড এপ্লিকেশন যেগুলো মুসলিম ছাত্র দের অনেক উপকারে আসবে। তো চলুন দেখে নেই আমার দেখা সেই সেরা এপ্লিকেশন গুলোর লিস্ট।

Muslim Pro


মুসলিম প্রো হলো এমন একটি এপ্লিকেশন, যা দ্বারা আপনি ইসলামিক লাইফ লিড করার একটি বড় এসেস্ট পেয়ে যাবেন। এখানে রয়েছে কুরআন( অনুবাদ ও তিলওয়াত সহ),কিবলা,সালাতের সময়,হিজরি ক্যালেন্ডার,  প্রেয়ার ট্রেকার, অনেক মোটিভেশনাল ফ্লায়ার এবং পোস্টার, অন্য মুসলিম দের থেকে দোয়া চাবার জন্য কোমিউনিটি আরো অনেক কিছু! আশা করি এই এপ্লিকেশন  টি আপনার ভালোই লাগবে।

2.Alarmy


আমাদের অনেকেরই ঘুম থেকে ঠিক সময়ে উঠতে না পারার বদ অভ্যাস আছে। যাদের আছে তাদের জন্য এই এপ্লিকেশন টা বেস্ট। কারন এই এপ্লিকেশন  এ আপনি নানা রকম মিশন Alarm  সেট করতে পারবেন। আপনি চাইলে Alram অফ করার জন্য অংক সমাধান করা, ছবি তোলা কিংবা QR কোড স্কেন করার মিশন সেট করতে পারেন। এবং সেট করা মিশন  একম্পপ্লিসড না করলে আলার্ম অফ হবে না। এই এপ্লিকেশন  টা সত্যিই আমার কাছে দারুন লেগেছে। আপনারা চাইলেই যেকোনো হালাল রিং টোন সেট আপ করে আপনার ফযরের সালাত কাযা হওয়া থেকে বাচাতে পারেন। কিংবা পড়তে বসার  জন্য সঠিক সময়ে জেগে উঠতে পারেন।

3. Timetune


আমাদের জেনেরেশন কে মাল্টিটাক্সিং জেনারেশন বললে ভুল কিছু হবে না। আমরা৷ যেমন একই সময় বই পড়া ও মোবাইল টিপতে পারি, ঠিক তেমনি খেতে খেতে পড়াশুনা করার ও রেকর্ড  আছে আমাদের।(দ্বিতীয় দৃশ্য টা সাধারনত পরীক্ষার আগের রাতে দেখা যায়)
।তো সেই যাই হউক, আমরা যেহুতু স্মার্ট  জাতি,সেহুতু আমরা ডেইলি প্লানিং করতে খুব ভালবাসি। কিন্তু ব্রেইন এ বেশি চাপ পড়ার জন্যেই হউক আর যেই জন্যই হউক,অধিকাংশ ক্ষেত্রে নিজেদের ডেইলি সিডিউল নিজেরাই ভুলে যাই। যার কারনে অনেক গুলো কাজ করব করব বলে করা হয়ে উঠে না। এই পরিস্থিতি  মোকাবিলা করার জন্য টাইমটিউন  হেল্পফুল হতে পারে। এই এপ্লিকেশন  টা দিয়ে যেমন নিজের ডেইলি প্লান করা যায়, তেমনি নিজের প্লান এর ঠিক সময় রিমাইন্ডার ও  পাওয়া যায়।আর সবচেয়ে মজার বিষয় হলো এই এপ্লিকেশনে চাইলেই একাধিক রুটিন সেট কর যায় এবং ইচ্ছা মতো রুটিন একটিভ ডিএকটিভ করা যায়।চাইলেই কোনো ইম্পোরটেন্ট  ইভেন্ট এড করা যায় এবং ইভেন্ট এর নোটিফিকেশন  পাওয়া যায়।প্রত্যেক টা কাজের আলাদা আলাদা আইকন সেট করা৷ যায়, যা নোটিফিকেশন  এ আরো এট্যাক্টিভ করে তুলে।যারা টাইম টেবিল করে পড়াশুনা এবং অনান্য কাজ করতে আগ্রহী, এপ্লিকেশন  টা তাদের হেল্প করতে পারে।

3.Promodoro Timer



পড়া লেখার মাঝে এক ঘেয়েমি আসা টাই স্বাভাবিক। কিন্তু ব্রেক নিয়ে পড়লে সেই একঘেয়েমি টা আর আসে না। পড়া লেখা কিংবা কাজ কে আরো এফেক্টিভ ভাবে করতেই প্রোমোদোরোর উতপত্তি। আর এই প্রোমোদোরো টাইমারের এখন এন্ড্রয়েড এপ্লিকেশন  ও পাওয়স যাচ্ছে। পড়ালেখার ক্ষেত্রে টাইম ম্যানেজমেন্ট  এ অনেক কাজে আসবে এই এ্যপ।

৪.Flashcards


আমরা যখনই কোনো কিছু দুই তিন বার পড়ি আমাদের মনে হতে থাকে, “আরেহ, এইটা আমি তো পারব।কিন্তু প্রয়োজনের সময় সময় প্রশ্নের উত্তর অথবা সংজ্ঞা মনে থাকে না। আর এই অবস্থা থেকে পরিত্রাণ পেতে নিজেকে যাচাই করা একান্ত দরকার। আর যাচাই করার জন্য ফ্লাশকার্ড হতে পারে একটি মজার সল্যুশন।এখানে আপনি চাইলেই সাবজেক্ট এবং টপিক অনুসারে সংজ্ঞা এবং বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর এড করতে পারবেন।এবং শিখা হলে প্রশ্ন ব্যাংক হতে নিজেকে যাচাই কর‍তে পারবেন। আর ইচ্ছা করলে মোবাইল এ সেট করা ভয়েস দিয়েই প্রশ্নের উত্তর শুনতে পারবেন- তা ও আপনার প্রিয় বাংলা ভাষায়!

৫। Google Keep


গুগল কিপ মূলত গুগলের একটা খুব মজাদার নোট টেকিং এপ্লিকেশন। এটা পিসি এবং এন্ড্রয়েড  -উভয় প্লাটফর্ম  এ ব্যবহার যোগ্য। এখানে আপনি চাইলেই আপনার পছন্দের  লেখা টি নোট করে রাখতে পারেন। তাহলে আপনার  স্টাডি নোট রাখতে সমস্যা কি?

৬.10 Minute School


এই এপ্লিকেশন  এর সম্পর্কে  বলা নিষ্প্রয়োজন। এই এপ্লিকেশন  থেকে আপনি চাইলেই অনেক ডিজিটাল স্টাডি মেটারিয়াল ব্যবহার করতে পারবেন, সহজেই।

7.Google Handwriting Input


কোনো জিনিস টাইপ করা থেকে কাগজে লিখলে আমাদের মনে বেশি থাকে।এটা আসলে একটা সাইকোলজিক্যাল সেট আপ। তাই আপনার ডিজিটাল নোট বানাতে গিয়েই আপনার পড়া শিখে ফেলার জন্য আপনি এই এপ্লিকেশন এর সাহয্য নিতেই পারেন। এতে যেমন আপনার সময় বাচবে,তেমনি নোট টা সুন্দর ও টেকসই হবে। আর যদি পারেন, তবে বাজার থেকে একটি টাচ পেন কিনে নিন।এই এপ্লিকেশন দিয়ে আপনি চাইলে বাংলা আর্টিকেল ও লিখতে পারেন

৮. Adobe Reader


যেহুতু আমরা ডিজিটাল লার্নিং এর কথা বলছি,সেহুতু এতে পিডিএফ এর বিকল্প নেই।আপনার পছন্দের পিডিএফ আপনি চাইলেই Adobe ব্যবহার করে পড়তে পারেন।

9. Adobe Scanner


যতই ডিজিটাল হই না কেন, এখনো আমাদের বই গুলো কিন্তু কাগজেরই রয়ে গেছে আর এক্সাম ও আমাদের সেই কাগজেই দিতে হয়। তাই বেশ কিছু ডুকেমেন্ট আমাদের কাগজে রাখতে হবেই। কিন্তু আমাদের(বিশেষ করে ছেলেদের) এই সব কাগজের নোট হারিয়ে যায়। এই পরিস্থিতি তে আমরা চাইলেই আমাদের প্রয়োজনীয় অংশ ক্যামেরা দিয়ে স্কেন করে আমাদের ডিজিটাল নোট এর সাথে কম্বাইন করে রাখতে পারি। তাহলে পরীক্ষার আগের রাতে নোট খুজতে কষ্ট হবে না। আর এই স্কেন করার জন্য এডোবি স্কেন একটা বেস্ট এপ্লিকেশন।

10.Youtube


আসলে এই প্লাটফর্ম সম্পর্কে বলার কিছুই নেই। এই প্লাটফর্ম রোজই নতুন নতুন মানুষ দের নতুন ভাবে নতুন জিনিস শিখিয়ে চলছে।
Like
0
Love
0
Ah Ah
0
Wow
0
Sad
0
Grrr
0
X